গর্ভবতী নারীর রোজা

বৈচিত্র ডেস্ক :  গর্ভবতী নারীরা কি রোজা রাখতে পারবেন? এই প্রশ্নটি আমরা সব সময় শুনে থাকি। রমজান মাসে রোজা রাখা নিয়ে গর্ভবতী নারীরা চিন্তিত হয়ে পড়েন। তবে চিন্তার কিছু নেই, গর্ভবতী নারীরা রোজা রাখতে পারবেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গর্ভবতী হলে রোজা রাখা যাবে কি না, তা নিয়ে অনেক সময় তারা নানা সংশয়ে ভোগেন। তাদের জন্য বলছি, গর্ভবতী নারীরাও রোজা রাখতে পারবেন। তবে হবু মায়ের রোজা রাখার আগে কিছু বিষয় অবশ্যই জানা জরুরি। আসুন জেনে নেই সেই বিষয়গুলো।

মেডিকেল চেকআপ : গর্ভবতী নারীদের রোজা থাকতে কোনো সমস্যা নেই। তবে সেক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে। রোজার আগে ডাক্তারের কাছ গিয়ে চেকআপ করানোটা খুব জরুরি।

পুষ্টিকর খাদ্য : গর্ভবতী মায়েরা যেহেতু সারা দিন কিছু খেতে পারবেন না, তাই সাহরিতে পুষ্টিকর খাদ্য বেশি খেতে হবে। খাবারে রাখতে হবে দুধের প্রাধান্য।

ডিম, মাছ, মাংস : রোজায় গর্ভবতী নারীরা ডিম, মাছ-মাংস পরিমাণমতো খেতে হবে। কারণ একজন সাধারণ মানুষের তুলনায় অন্তঃসত্ত্বা মায়ের পুষ্টির প্রয়োজন বেশি। এক্ষেত্রে তারা ডাক্তারের কাছ থেকে রোজার আগে ও পরের সময়ের খাদ্য তালিকা নিয়ে নিতে পারেন। এতে মা ও বাচ্চা দুজনই সুস্থ থাকবেন।

রোজার আগে চেকআপ : গর্ভবতী মায়ের রুটিন চেকআপ ছাড়াও রোজা শুরুর আগে তার চেকআপ করাতে হবে। কারণ মনে রাখতে হবে একজন অন্তঃসত্ত্বা নারী মানে মা ও শিশু দুজনই। অনেকের গর্ভাবস্থায় কিছু ওষুধ সেবন করতে হয়। তারা দিনের বেলার ওষুধগুলো রাতে খেয়ে নেবেন। যে ওষুধগুলো সারা দিনে একবারই খেতেন, সেগুলো রাতে খেয়ে নিতে পারেন। আর যে ওষুধগুলো মোট দুবার খেতেন, সেগুলো ইফতারের সময় একবার ও শেষরাতে আরেকবার খেয়ে নিতে পারেন।

পর্যাপ্ত ঘুম : রমজানেও সময় বের করে প্রতিদিন ১০ ঘণ্টা ঘুম ও পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে হবে গর্ভবতী মাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *