নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে লঘুচাপ , আজও বৃষ্টি থাকবে

বৈচিত্র রিপোর্ট  : বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপ নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাবে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হয়েছে। এর ফলে গরমের তীব্রতা হ্রাস পেয়েছে। এদিকে নিম্নচাপের প্রভাবে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কি.মি. যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৫০ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ সোমবার ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দম্কা/ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে ঢাকা, সিলেট, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। যশোর, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, বগুড়া, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে প্রবাহমান মৃদু তাপপ্রবাহ প্রশমিত হতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা (১-৩) ডিগ্রি সেঃ হ্রাস পেতে পারে।
গতকাল আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক বুলেটিনে বলা হয়েছে, উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তত্সংলগ্ন বাংলাদেশ উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হয়ে মৌসুমি নিম্নচাপে রূপ নিয়ে গতকাল রবিবার বেলা ১২টায় সন্দ্বীপ ও তত্সংলগ্ন উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর/উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আজ মধ্যরাত নাগাদ সীতাকুন্ডের নিকট দিয়ে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিঃ মিঃ এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিঃ মিঃ যা দম্কা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কিঃ মিঃ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটে সাগর মাঝারি ধরনের উত্তাল রয়েছে। মৌসুমি নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগরে বায়ুচাপ পার্থক্যের আধিক্য বিরাজ করছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তত্সংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *