শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাস থেকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

বৈচিত্র ডেস্ক :  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক্যাম্পাস শ্যাডো’ এলাকা থেকে তাকে তুলে নেয়া হয়। পরে প্রায় ২০ ঘণ্টা পর বুধবার বিকালে তাকে ছেড়ে দেয়া হয় বলে যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর সহপাঠীরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস শ্যাডোতে আড্ডা দিচ্ছিলেন আইন বিভাগের শিক্ষার্থী সাজ্জাদ হোসেন। হঠাৎ কয়েকজন এসে নিজেদের ডিবি পরিচয় দিয়ে সাজ্জাদসহ চারজনকে মল চত্বরে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের একটি মাইক্রোবাসে উঠানো হয়। পরে বাকি তিনজনকে ছেড়ে দেয়া হলেও সাজ্জাদকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। ২০ ঘণ্টা পর তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এদিকে বুধবার সকালে সাজ্জাদের সহপাঠীরা আইন বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক নাইমা হককে ঘটনাটি অবহিত করেন। সহপাঠীরা জানান, ক্যাম্পাসের মধ্যে এ ধরনের ঘটনাকে দুঃখজনক উল্লেখ করেন চেয়ারপারসন। তিনি সাজ্জাদের পরিচয়সহ শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানীর কাছে পাঠান। দুপুর দেড়টার দিকে আইন বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের রুমে গিয়ে সাজ্জাদের পরিচয়পত্র প্রক্টর অফিস জমা দেন।

এ বিষয়ে বুধবার বিকালে প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, ওই ছাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয়েছিল। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিকালে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কেন তাকে তুলে নেয়া হয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তুলে নিয়েছে। আইনগত কোনো বিষয়ে কথা বলার ছিল হয়তো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *