তীব্র যানজট ঐক্যফ্রন্টের জনসভা ঘিরে

বৈচিত্র ডেস্ক : রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আজ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভাকে কেন্দ্র করে পুরো রাজধানীতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট ও শাহবাগ এলাকায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। শাহবাগ থানার সামনে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোনো যানবাহন ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। কেবল জনসভার দিকে যাওয়া গাড়িগুলোকে শাহবাগ এলাকার আশপাশের সড়কে রাখতে দেয়া হচ্ছে।

এদিকে যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) সদস্যদেরকেও কাজ করতে দেখা গেছে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশ স্থলে আসতে শুরু করেন। মিছিল নিয়ে অংশ নেন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার নেতাকর্মীরা। এতে যানবাহন চলাচল ব্যাহত হওয়ায় সমাবেশ স্থল কেন্দ্রীক যানজট ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের এলাকায়। একপর্যায়ে শাহবাগ থেকে মৎস্য ভবন, বাংলামোটর থেকে শাহবাগ, ভিআইপি রোড থেকে মৎস্য ভবন, পল্টন-প্রেসক্লাব থেকে হাইকোর্ট পর্যন্ত সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ডিএমপির নিয়মিত ফোর্স ও ট্রাফিক বিভাগ একসঙ্গে কাজ করছে। তারা রাস্তা থেকে সোহরাওয়ার্দীর দিকে মিছিলসহ সবাইকে চলে যেতে অনুরোধ করছেন।

যানজটে দুর্ভোগে পড়া বিপাশা নামে বিকল্প পরিবহনের এক যাত্রী বলেন, সমাবেশের কারণে গাড়ি আটকানো ঠিক না। আমি দুই ঘণ্টা ধরে শাহবাগ-মৎস্য ভবন মধ্যকার এলাকায় আটকে রয়েছি। গাড়ির চাকা চলছেই না। গাড়ির চালক আব্দুলাহ বলেন, পরিবহনকে সমাবেশের বাইরে রাখা উচিত।

যানজটের বিষয়ে ডিএমপির ইন্সপেক্টর হাফিজ বলেন, আমরা চাই পরিবহন চলাচল করুক, রাস্তা পরিষ্কার থাকুক। এজন্য আমরা যানজট নিরসনে মিছিলগুলোকে সমাবেশ এলাকায় চলে যেতে অনুরোধ করছি।

উল্লেখ্য, সরকারের পদত্যাগ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন, খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির নিঃশর্ত মুক্তি ৭ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে জনসভার আয়োজন করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। জনসভা ঘিরে সকাল থেকেই বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জড়ো হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *