দিনাজপুরে বিলুপ্ত প্রজাতির ঈগল উদ্ধার

বৈচিত্র ডেস্ক :  দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে একটি বিশাল আকৃতির ঈগল পাখি উদ্ধার করা হয়েছে। শারীরিকভাবে অসুস্থ পাখিটি উড়তে না পাড়ায় বর্তমানে চিরিরবন্দর উপজেলার আলোকডিহি ইউনিয়নের গছাহার গ্রামের হিমাংসু কুমার দাস ওরফে ছোটনের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। পাখিটি বিলুপ্ত প্রজাতির বলে স্থানীয় এক প্রবীন শিক্ষক জানায়। বিলুপ্ত প্রজাতির পাখিটি দেখার জন্য সোমবার সকাল থেকে হাজারো মানুষের ভীড় জমে।

স্থানীয় উদ্ধারকারী ছোটনসহ স্থানীয়রা জানান, রবিবার রাত সোয়া ৯টার দিকে গছাহার গ্রামের দূর্গামন্ডবের কাছে একটি গাছে পাখিটি উড়ন্ত অবস্থায় পড়ে যায়। পরে পাখিটি মন্দির চত্বরে এসে পড়ে। শারীরিকভাবে অসুস্থ্য পাখিটি উড়তে না পাড়ায় নিস্তেজ হয়ে পড়েছে। পাখিটি অসুস্থ দেখে উদ্ধার করে বাড়িতে আনা হয়। পাখিটির ওজন আনুমানিক ১০ কেজি। উপজেলা প্রানী সম্পদ বিভাগকে জানানো হয়েছে।

অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণ শিক্ষক বাবু নন্দীশ্বর দাস জানান, পাখিটি শিকারী ঈগল প্রজাতির। এরা বিল এলাকায় মাছ খেয়ে জীবনধারণ করে। খাবার ও বসবাসের পরিবেশ না থাকায় এ প্রজাতির ঈগল এখন বিলুপ্তির পথে। এর ছাই রঙের পালকের মধ্যে সাদা ডোরাকাটা দাগ রয়েছে। পাখিটি রক্ষণাবেক্ষণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

চিরিরবন্দর উপজেলা প্রানীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. আবু সাঈদ জানান, পাখিটি উদ্ধারের বিষয়টি জেনেছি। যাদের কাছে পাখিটি রয়েছে তাদেরকে আমার অফিসের সাথে যোগাযোগ করতে বলেছি। বন বিভাগের কর্মকর্তা ও রামসাগর চিরিয়াখানার তত্ত্বাবধায়ক মো. আব্দুস সালাম তুহিন জানান, শীতের সময় আমাদের দেশে অতিথি পাখির আগমন ঘটে। এ কারণে এটি অন্য কোনো দেশ থেকে আসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *