মুখরিত নিলুয়ার বিল

বৈচিত্র ডেস্ক : প্রতি বছরের মতো এবারও মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার নিলুয়ার বিলে অতিথি পাখির আগমন ঘটেছে। ফলে বিভিন্ন এলাকা থেকে পাখিপ্রেমীরা দল বেঁধে আসছেন পাখি দেখতে।

শীতকাল এলেই এই নিলুয়ার বিল অতিথি পাখির কিচির মিচির শব্দে মুখরিত হয়ে উঠে। খুব বড় না হলেও  বিলটি পাখির কারণে বেশ পরিচিতি লাভ করেছে। পাখির বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি, উড়েচলা, নীরবে বসে থাকা- মানুষকে আকৃষ্ট করে। তাই দূরদূরান্ত থেকে লোকজন একনজর পাখি দেখার জন্য এখানে আসেন। চলমান এ রাস্তার লোকজন গাড়ি থামিয়ে অথবা পায়ে চলার পথে এখানে এক দ- দাঁড়াতে বাধ্য হন। প্রতিদিন শত শত মানুষ ভিড় জমান এখানে। উপভোগ করেন মনোরম দৃশ্য। নিলুয়ার এই বিলে অতিথি পাখির আনাগোনা বেড়েছে বেশ কয়েক বছর ধরেই। প্রতিবছর শীত মওসুমে বিলটি যেন হয়ে যায় পাখির আবাসস্থল। এ বিলে পাখির আগমন ঘটে নভেম্বর মাসে। পাখিগুলো মার্চ মাস পর্যন্ত অবস্থান করে এখানে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পাখির কলতানে মুগ্ধ করে সবাইকে। দলবেঁধে যখন পাখিগুলো আকাশে উড়ে তখন এক অপরূপ দৃশ্যের অবতারণা হয়, যা না দেখলে অনুভব করা যায় না। স্থানীয়রা জানান, আগে অনেকেই পাখি শিকার ও  বিরক্ত করতো। এখন এখানে কেউ পাখি শিকার করে না। অতিথি পাখির মধ্যে রয়েছে বালিহাঁস, খয়রা চখাচখি, কার্লিউ, পানি কাউর, পানকৌড়ি। এ ছাড়া মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার আন্ধারমানিক, সুতালড়িসহ আশপাশ এলাকা দিয়ে বয়ে যাওয়া পদ্মা নদীর পাড়ে এবং দৌলতপুর উপজেলার যমুনা নদীর কয়েকটি এলাকায় কিছু কিছু অতিথি পাখির দেখা মেলে। ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী সরকার রাখি বলেন, শীত এলে  অতিথি পাখির আগমন ঘটে এখানে। গ্রাম ও শহরের সব বয়সী মানুষ অতিথি পাখি  দেখতে ভিড় করেন এখানে। বিলটির উন্নয়ন ও অতিথি পাখির নিরাপদ অভয়াশ্রম করার লক্ষ্যে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে একটি প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *