দুধে ভেজাল মেশানো মারাত্মক দুর্নীতি: হাইকোর্ট

বৈচিত্র ডেস্ক : গাভীর দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যপণ্যে ভেজাল মেশানোকে মারাত্মক দুর্নীতি বলে উল্লেখ করেছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ গাভীর দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যপণ্যে ভেজাল রোধে স্বপ্রণোদিত রুল জারি ও আদেশ প্রদানকালে একথা বলেন।

এ সময় আদালত আরো বলেন: দুধে এত এত ভেজাল হলে এবং তা খেলে তো বিভিন্ন রোগ হয়ে যাবে। স্বাস্থ্যই যদি ঠিক না থাকে, তাহলে এত টাকা-পয়সা দিয়ে আমাদের সবার কী হবে?

সোমবার বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত ‘গাভীর দুধ ও দইয়ে অ্যান্টিবায়োটিক, কীটনাশক, সিসা’ শিরোনামে প্রতিবেদন নজরে নিয়ে এ বিষয়ে স্বপ্রণোদিত আদেশ দিয়ে ও রুল জারি করেন হাইকোর্টের এ বেঞ্চ।

আদালত তার রুলে, দুধ এবং দুগ্ধজাত খাদ্যপণ্যে ভেজালকারীদের আইনের আওতায় এনে কেনো সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করা হবে না তা জানতে চান। সেই সাথে দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যপণ্যে ভেজাল প্রতিরোধে সংশ্লিষ্টদের ব্যর্থতা ও নিষ্ক্রিয়তাকে কেনো অবৈধ ঘোষণা করা হবে না রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়।

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, কেন্দ্রীয় নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা সমন্বয় কমিটি, বি এস টি আই এর চেয়ারম্যান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্বাস্থ্য সচিব,খাদ্য সচিব, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব, কৃষি সচিবকে বিবাদি করে আগামি ৪ সপ্তাহের মধ্যে তাদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এই রুলের পাশাপাশি ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের গাভীর ও ব্রান্ডের প্যাকেট জাত দুধ-দইয়ে এবং গো খাদ্যে কী পরিমান অ্যান্টিবায়োটিক, কীটনাশক, সিসা তথা ভেজালের উপস্তিতি রয়েছে তা নিরূপণে একটি জরিপ করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এবং এ জরিপ প্রতিবেদন আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। আর এবিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ৩ মার্চ দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে কথা বলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। আর অপর পক্ষে বলেন দুদকের আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *