শাজাহান খানের সেই হাসির নেপথ্যে সাংবাদিকদের উস্কানি

বৈচিত্র ডেস্ক : গত বছর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর তৎকালীন মন্ত্রী শাজাহান খানের যে হাসি ক্ষোভের আগুন জ্বালিয়েছিল, নয় মাস পর সেই হাসির ঘটনার ব্যাখ্যা দিলেন তিনি।

সোমবার ১৪ দল আয়োজিত ‘নিরাপদ সড়ক ও মাদকমুক্ত সমাজ’ শীর্ষক সেমিনারে শাজাহান খান বলেন, তার ওই হাসির পেছনে ‘সাংবাদিকদের উস্কানি’ ছিল।

সেমিনার সঞ্চলনার দায়িত্ব পালন করেন মোহাম্মদ নাসিম। তিনি শাজাহান খানকে বক্তব্য রাখার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘শাজাহান খান সাহেব, আপনি বলেন। আপনার সবই ঠিক আছে, তবে হাসি ও গরু-ছাগল মন্তব্যের জন্যই সমস্যা হয়েছিল।’

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। পরে শাজাহান খান ওই দুর্ঘটনার ব্যাপারে সাংবাদিকদের হাসিমুখে প্রতিক্রিয়া দেন-যা তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে। একই সঙ্গে ‘গরু-ছাগল চিনলে লাইসেন্স দেওয়া যাবে- তার এমন বক্তব্যে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

মোহাম্মদ নাসিমের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে শাজাহান খান এমপি তার সেই হাসির নেপথ্য কারণ তুলে ধরে বলেন, ‘ওই হাসির নেপথ্যে ছিল সাংবাদিকদের উস্কানি। ৬৮ বছর পর মোংলা বন্দরের জট ছুটতে যাচ্ছে- এই কথা বলার সময় হঠাৎ করে একজন সাংবাদিক আমাকে সড়ক দুঘটনা প্রসঙ্গে জানতে চেয়েছিলেন। তখন আমি বলেছিলাম এই ঘটনায় চালকের ত্রুটি থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সঙ্গে সঙ্গে এক সাংবাদিক বললো আপনার আসকারা পেয়ে চালকরা এমন হয়েছে। আমার নাকি আস্কারা? এই কথায় আমি একটু হেসেছিলাম। তাছাড়া আমি একটু বেশি হাসি দেই। তবে এই হাসির জন্য উস্কানি দিয়েছে সাংবাদিকরা।’

শাজাহান খান আরও বলেন, ‘সড়কে বিরাজমান সমস্যা সমাধানে সব সরকারের আমলেই বিভিন্ন সুপারিশ আছে কিন্তু সেগুলো বাস্তবায়ন না হওয়ায় সমস্যার সমাধান হয়নি। পরিবহন সেক্টরে দক্ষ চালক তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অথচ আমরা চালকদের প্রশিক্ষণে ভর্তুকি দিতে পারছি না। সড়কের সমস্যা সমাধানে যেসব সুপারিশ আসে সেগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে।’

আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে সেমিনারে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙা, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শফিকুর রহমান এমপি, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম, সাংবাদিক নেতা মনজুরুল আহসান বুলবুল, আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাইমুল ইসলাম খান, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, সংসদ সদস্য এ্যারোমা দত্ত, সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির নেতা খন্দকার এনায়েত উল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এছাড়া সেমিনারে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *