শ্রাবন্তী-রোশন এখন কোথায়?

বিনোদন ডেস্ক: টালিউডের হার্টথ্রুব অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের প্রেম বিনোদন নিয়ে কম কথা হয়নি। তার বিয়ের বিষয়টি এখন সবার মুখে মুখে। এক এক করে তিনটি বিয়ে করে ফেলেছেন এ অভিনেত্রী। ঘরে রয়েছে কিশোর ছেলে।

বিয়ের আগে বিমান সংস্থার কেবিন ক্রু সুপারভাইজার রোশন সিংয়ের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রেম নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। তৃতীয় বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয় নিন্দুকদের কড়া সমালোচনা। এসব কোনোটিই কানে নেননি গুণী এ অভিনেত্রী। সব বিতর্ক মাড়িয়ে চণ্ডীগড়ে চুপিসারে বিয়ে সেরে ফেলেন শ্রাবন্তী-রোশন।

বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে থাকলেও সময়টা বেশি দিয়েছেন অভিনয়ে। তাই মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া হয়নি। সপ্তাহখানেক আগে হঠাৎ শ্রাবন্তীর ইনস্ট্রাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট হয়। এটি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায় নেটিজনদের।

নেটিজনরা ধরে নেন নবদম্পতি মধুচন্দ্রিমায় গেছেন। তবে বিষয়টি ধাঁধার মতোই রয়ে গেছে। এর পর দুদিন আগে ইনস্টাগ্রামে আরও একটি রোমান্টিক ছবি শেয়ার করেন শ্রাবন্তী-রোশান। ক্যাপশনে রোশন লিখেছিলেন, ‘এই পৃথিবীর কোনো এক স্থানে।’

খড়ের গাদায় স্বামীর পাশে বসে পোজ দেয়া ওই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। তখন সবাই নিশ্চিত হয়ে যান যে তারা হানিমুনেই আছেন।

কিন্তু তারা কোথায় মধুচন্দ্রিমা করছেন, এ রহস্য থেকেই যায়। কদিন ধরেই এ নিয়ে চলছে নানা জল্পনা।

শ্রাবন্তী-রোশন ভ্রমণ-স্থানের নাম লুকানোর চেষ্টা করলেও রোশনের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট জানান দিচ্ছে- তারা রয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী বালিতে। একটি ছবি সেই সাক্ষ্যই দিচ্ছে। অবশ্য ভক্তরা আগেই অনুমান করেছিলেন।

একে অপরের সঙ্গে সময়টা যে মন্দ কাটছে না, তা তাদের ছবি দেখলেই বেশ বোঝা যায়। কখনও একসঙ্গে চা খেয়ে, কখনওবা একসঙ্গে খড়ের গাদায় বসে দিব্যি সুন্দর সময় কাটছে শ্রাবন্তী-রোশনের।

গত ১৯ এপ্রিল। অর্থাৎ ৪ বৈশাখ পাঞ্জাবি রীতিতে গাঁটছড়া বাঁধেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ২৩ এপ্রিল কলকাতায় ফেরেন অভিনেত্রী।

এর আগে শ্রাবন্তীর দুবার বিয়েবিচ্ছেদ হয়।২০০৩ সালে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রথম বিয়ে হয়। তাদের ঘরের সন্তান ঝিনুক। রাজীবের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর মডেল কৃষ্ণ ব্রজের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রেম হয়। বিয়েও করেন তারা। গত জানুয়ারিতে কৃষ্ণের সঙ্গেও বিচ্ছেদ হয়ে যায় শ্রাবন্তীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *