নাসায় প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এটলাস তৈরি করেন অনন্যা

বৈচিত্র ডেস্ক : নাসায় প্রথম বাংলাদেশি তরুণী হিসেবে ২০১১ সালে তনিমা তাসনিম অনন্যা ‘ওরায়ণ নেবুলা’ নামে একটি তারকা গুচ্ছের এটলাস তৈরি করেন হাবল টেলিস্কোপের সাহায্যে।

তিনি এরপর যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে ব্ল্যাক হোল নিয়ে গবেষণা করে পিএইচডি লাভ করেন।

অনন্যা জানান, তার গবেষষণার বিষয়টি ছিল এক্স-রে দ্বারা বিগত সাড়ে ১২ বিলিয়ন বছরে এই ধরনের সুপার ম্যাসিভ ব্ল্যাক হোলের একটি সেনসাস তৈরি করা। এই সেনসাস তৈরি করতে তিনি একটি নিউরাল নেটওয়ার্ক কোড করেন।

ড. অনন্যা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ডার্টমুথ কলেজে একজন পোস্টডক্টোরাল রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট হিসেবে কাজ করছেন।

তিনি ইউরোপিয়ান নিউক্লিয়ার রিসার্চ সেন্টারে কাজ করেছেন।

এছাড়াও, তিনি তার পিএইচডির অংশ হিসেবে জার্মানির ম্যাক্স প্ল্যাংক ইনস্টিটিউট ফর এক্সট্রাটেরেস্ট্রিয়াল ফিজিক্সেও ব্ল্যাক হোল নিয়ে গবেষণা করেন।

ইয়েলে পড়াকালীন অনন্যা লি পেজ অ্যাওয়ার্ড এবং অ্যালেন জে ব্রোমলি ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড পান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *