২০২২ কাতার বিশ্বকাপে খেলতে পারবে রাশিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক : ডোপিং নমুনায় কারসাজির নতুন অভিযোগে সোমবার সব ধরনের বৈশ্বিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা থেকে চার বছরের জন্য রাশিয়াকে নিষিদ্ধ করেছে আন্তর্জাতিক ডোপিংবিরোধী সংস্থা (ওয়াডা)। ফলে ২০২০ টোকিও অলিম্পিক ও ২০২২ কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে খেলতে পারবে না দেশটি। রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ডোপিংয়ের অভিযোগে ২০১৫ সাল থেকেই অ্যাথলেটিক্সে নিষিদ্ধ রাশিয়া। ২০১৬ রিও অলিম্পিকেও দেশ হিসেবে অংশ নিতে পারেনি তারা। অলিম্পিকে দর্শক হয়ে থাকাটা তাই রাশিয়ার জন্য অভাবনীয় কোনো ধাক্কা নয়।

ডোপ পাপের শাস্তির মধ্যে এবার ফুটবল বিশ্বকাপ অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় আসল ধাক্কাটা খেয়েছে তারা। নিষেধাজ্ঞার ব্যাপ্তি নিয়ে ওয়াডার ব্যাখ্যায় বিভ্রান্তিও তৈরি হয়েছে। বিশ্বকাপে খেলতে না পারলেও কাতার বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে অংশ নিতে কোনো বাধা নেই রাশিয়ার! অ্যাথলেটদের মতো রুশ ফুটবলারদের বিরুদ্ধে ঢালাও ডোপিংয়ের প্রমাণ মেলেনি। শুধু সন্দেহের ভিত্তিতে ফুটবলে তাদের নিষিদ্ধ করাটা তাই প্রশ্নবিদ্ধ। তবে এখানে একটা ফাঁক রেখেছে ওয়াডা। তারা বলছে, রুশ ফুটবলাররা যে কোনো টুর্নামেন্টেই খেলতে পারবেন। কিন্তু রাশিয়া খেলতে পারবে না।

এখানেও ঝামেলা আছে। বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ রাশিয়ার ২০২০ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে খেলতে কোনো বাধা নেই। কারণ ওয়াডার মানদণ্ডে ইউরো বড় কোনো টুর্নামেন্ট নয়! ফিফার আপত্তি না থাকলে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বেও খেলতে পারবে রাশিয়া। কারণ বাছাইপর্বে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন নির্ধারিত হয় না। ব্যাখ্যা বটে! প্রশ্ন হল, রাশিয়া যদি ২০২২ বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব পার হতে পারে তখন কী হবে। এ ব্যাপারে পরিষ্কার ধারণা পেতে এরই মধ্যে ওয়াডার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা। এই সংকটের বিকল্প কিছু সমাধান পর্যালোচনা করে দেখছে ফিফা।

ওয়াডার নীতিমালা পর্যালোচনা কমিটির চেয়ারম্যান জোনাথন টেলর জানিয়েছেন, বাছাইপর্বে খেলতে পারলেও রাশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করা দল বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারবে না। তবে বিশ্বকাপে রুশ ফুটবলারদের অংশগ্রহণে কোনো আপত্তি নেই ওয়াডার। অর্থাৎ ফিফা চাইলে নতুন কোনো পদ্ধতি বের করে নিরপেক্ষ দল হিসেবে তাদের বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ করে দিতে পারে! গত অলিম্পিকে নির্দোষ রুশ অ্যাথলেটরা এভাবেই নিরপেক্ষ পতাকা নিয়ে অংশ নিয়েছিলেন। টোকিও অলিম্পিকেও সেই সুযোগ থাকছে। ফুটবল বিশ্বকাপেও এমন বিকল্প সমাধান বেরিয়ে আসতে পারে। ইউরোপের বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব এখনও শুরু হয়নি। ফলে বাছাইপর্বে রাশিয়ার অংশগ্রহণের ব্যাপারে ভেবেচিন্তে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ফিফা। রাশিয়াকে অবশ্য আপিল করার জন্য ২১ দিন সময় দেয়া হয়েছে। আপিল করবে কি না সেই সিদ্ধান্ত ১৯ ডিসেম্বর জানাবে রাশিয়া। তারা ধরেই নিয়েছে আপিলে কাজ হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *