জন্মের প্রথম বছর যে ৪ খাবার শিশুর জন্য ক্ষতিকর

বৈচিত্র ডেস্ক : জন্মের পর প্রতিটি শিশুর নিতে হয় বিশেষ যত্ন। এ সময় শিশুর রোগবালাই বেশি দেখা দেয়। এর কারণ ছোটকালে শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা খুব কম থাকে।

তিন বছর বয়স পর্যন্ত প্রত্যেক শিশুর খাবারের ক্ষেত্রে বাড়তি যত্ন নিতে হবে। সব খাবার শিশুকে খাওয়ানো যাবে না। কিছু খাবার রয়েছে যা শিশুস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

আসুন জেনে নেই সেসব খাবার সম্পর্কে।

১. এক বছরের কম বয়সী শিশুকে পরিশোধিত চিনি খাওয়ানো যাবে না। শিশুরা খাবারের মাধ্যমে প্রাকৃতিক চিনি গ্রহণ করে। তাই তাদের বাড়তি চিনি খা্ওয়ার প্রয়োজন নেই। পরিশোধিত চিনি খেলে শিশুর দাঁতে সমস্যা, ওজন বেড়ে যাওয়া ও ডায়াবেটিস হতে পারে।

২. দুধের শিশুকে ৬ মাস বয়স পর্যন্ত লবণ খেতে দেবেন না। মায়ের দুধ শিশুর লবণের চাহিদা পূরণ করে। তবে ৬ মাস কিংবা ১ বছর বয়স থেকে প্রতিদিন ১ গ্রামের কম লবণ খেতে পারবে। এর চেয়ে কম বয়সে লবণ খেতে দিলে শিশুর কিডনিতে পাথর, উচ্চ রক্তচাপ, ডিহাইড্রেশন এবং হাড় ভেঙে যাওয়ার সমস্যা হতে পারে।

৩. মধু পুষ্টিসমৃদ্ধ স্বাস্থ্যকর খাবার হলেও সদ্যোজাত শিশুর জন্য ক্ষতিকর। মধুতে থাকা ব্যাকটেরিয়া ১ বছরের বেশি বয়সের শিশু থেকে বৃদ্ধদের জন্য সহনীয়। এ ছাড়া ৬ মাস বয়সে শিশুর দাঁত ওঠে। এ সময় মধু খেলে শিশুর দাঁতের সমস্যা হতে পারে। ভুল করে যদি কখনও শিশুকে মধু খা্ওয়ান তবে খেয়াল করেন শিশুর মধ্যে অবসন্নতা, কোষ্ঠ্যকাঠিন্য কিংবা ক্ষুধা না থাকার লক্ষণগুলো দেখা যাচ্ছে কিনা। এসব লক্ষণ দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

৪. সদ্যজাতের শিশুকে গরুর দুধ খা্ওয়াবেন না। ১ বছরের কম বয়সী শিশুর জন্য গরুর দুধ ক্ষতিকর। কারণ এতে শিশুর হজমে সমস্যা হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের শিশু বিশেষজ্ঞরা জানান, চিনি, লবণ, গরুর দুধ, মধু, পপকর্ন, ক্যান্ডি, চুইংগাম, বাদাম, চেরি, গাজর, ডালিম ইত্যাদি খাবারগুলো শিশুর জন্য ক্ষতিকর। তাই এগুলো পরিহার করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *