আলোচনার পর আদালত বন্ধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত

বৈচিত্র ডেস্ক : করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আদালত বন্ধের বিষয়ে উচ্চ আদালতের সব বিচারপতিকে নিয়ে বসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আজ বুধবার সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে মুজিবর্ষ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, ‌‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ পালনে আমরা বিস্তারিত পদক্ষেপ নিয়েছি। নিম্ন আদালত থেকে সুপ্রিম কোর্ট, সব আদালতে জন্মশতবার্ষিকী বছর ব্যাপী পালন হবে।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘করোনাভাইরাস নিয়ে আমরা সচেতন। আমরা সমস্ত জজ সাহেব বসে সিদ্ধান্ত নিবো এটা নিয়ে কি করা যায়। এখন কোর্ট বন্ধ আছে (২৮ মার্চ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট ছুটি)। কোর্ট খোলার আগে আমরা একবার সবাই বসবো। বসে বিচারপ্রার্থী যারা আছেন তাদের যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কোর্ট খোলার আগেই আমরা বসে সিদ্ধান্ত নেবো তখন আপনাদের সেটি জানাবো।’

নিম্ন আদালতে জনসমাগম বেশি হয় সে ক্ষেত্রে নিম্ন আদালতের ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেবেন জানতে চাইলে এই বিচারপতি বলেন, ‘নিম্ন আদালত যেহেতু হাইকোর্টের অধীনে, সুতরাং সব ব্যাপারেই আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। কারণ লাখ লাখ বিচারপ্রার্থী রয়েছে, তাদের কথাও আমাদের মাথায় রাখতে হবে। পরিপূর্ণভাবে যদি কোর্ট বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে মানুষের ভোগান্তি বেড়ে যাবে। কারণ অনেকেই জরুরি বিষয় নিয়ে কোর্টে আসে। সবাই বসে একটা সিদ্ধান্ত নেবো।’

এর আগে প্রধান বিচারপতি মুজিববর্ষ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করেন। প্রথমেই তিনি ‘কুরচি’ নামে একটি বৃক্ষ রোপণ করেন। এরপর আপিল বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী ‘কাঞ্চণ’ বৃক্ষ রোপণ করেন।

এর পরে পর্যায়ক্রমে ‘বকুল’ রোপণ করেন বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, ‘পলাশ’ বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার, ‘শিমুল’ বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী, আর ‘শিউলি’ রোপণ করেন আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান। এ সময় হাইকোর্ট বিভাগের অন্য বিচারপতিরাও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *