কালো মাথা বুলবুলি

আ ন ম আমিনুর রহমান : বিরল পাখির খোঁজে কাপ্তাই জাতীয় উদ্যানের সর্পিল ছড়ায় হাঁটছি। প্রায় দু’কিলোমিটার হাঁটার পর সুন্দর একটি বাঁকের দেখা পেলাম। কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে বুক ভরে নিশ্বাস নিলাম। মনটা জুড়িয়ে গেল। হঠাৎ চোখে পড়ল কালোঝুঁটি বুলবুলি ছড়ার পানি পান করছে। ওর ছবি তুলতে গিয়ে সামনের গাছের ডালে কালোমাথা, ধূসর ঘাড়-গলা-বুকের আরেকটি জলপাই-হলদে রঙের পাখির দেখা পেলাম। যদিও কালো মাথা বুলবুলির সঙ্গে ওর কিছুটা মিল রয়েছে; কিন্তু এরকম পাখি আগে কখনও দেখেছি বলে মনে পড়ল না। ঝটপট কয়েকটা ছবি তুলে নিলাম। আরও ভালো ছবি পেতে যখনই ক্লিক করতে যাব তখনই পাখিটি উড়ে গেল বনের দিকে।
ঢাকায় ফিরে বিভিন্ন বই ও ইন্টারনেটের সাহায্যে পাখিটিকে শনাক্ত করলাম। এটি আসলে কোনো নতুন প্রজাতির পাখি নয়, এদেশের আবাসিক পাখি কালো মাথা বুলবুলির (Black-headed Bulbul) এক বিরল রূপ। অর্থাৎ ধূসর রূপের কালা মাথা বুলবুলি (Black-headed Bulbul Grey Morph). Pycnonotidae পরিবারের কালো মাথা বুলবুলির বৈজ্ঞানিক নাম Brachypodius atriceps.
কালো মাথা বুলবুলি দৈর্ঘ্যে ১৬ থেকে ১৮ সেমি। ওজনে ২০ থেকে ৩০ গ্রাম হয়। স্ত্রী-পুরুষ দেখতে একই রকম। প্রাপ্তবয়স্ক পাখির মাথা ও গলা উজ্জ্বল কালো। কাঁধ-ঢাকনি জলপাই রঙের। ডানা-পিঠ-বুক জলপাই-হলুদ। পেট-লেজের তল হলুদ। ডানার প্রান্তের পালক এবং লেজ ও কোমরের কিছু পালকে কালো দাগ আছে। বিরল ধূসর পাখির ক্ষেত্রে ঘাড়-গলা ও বুকের রঙ হালকা ধূসর থেকে ধূসর হয়। স্বাভাবিক ও ধূসর দুই রঙেরই ঠোঁট কালো, চোখ ফিকে নীল এবং পা ও পায়ের পাতা হালকা খয়েরি। অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখির কপাল কালচে-জলপাই, ডানার প্রান্ত-পালক বাদামি, থুতনি ও গলা জলাপাই-হলুদ।
কালো মাথা বুলবুলি সচরাচর দৃশ্যমান আবাসিক পাখি। চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের চিরসবুজ পাহাড়ি বনে এদের দেখা যায়। বন, বনের প্রান্ত এবং ছোট ছোট ঝোপঝাড়ে সচরাচর একাকি বা ছোট দলে বিচরণ করে। এরা বৃক্ষচারী দিবাচর পাখি। ছায়াঘেরা বনে গাছের ডাল থেকে ডালে লাফিয়ে ও গাছের তলার লতাগুল্ম থেকে পোকামাকড় ও রসালো ফল খায়। সচরাচর তীক্ষ্ণ কণ্ঠে ডাকে।
এপ্রিল-মে কালা মাথা বুলবুলি প্রজনন কাল। গাছের ইংরেজি ‘ওয়াই’ আকারের শাখা, আখের ক্ষেত কিংবা ঝোপঝাড়ে খড়কুড়ো, মরা পাতা ও সরু ঘাস দিয়ে কাপের মতো বাসা বানায়। ডিম পাড়ে ২ থেকে ৩টি। ডিমের রঙ ফিকে পাটকেলে। প্রায় ১৪ দিন তা দেয়ার পর ডিম ফোটে। বাবা-মা উভয়ে ডিমে তা দেয়া এবং বাচ্চা লালন-পালন করে। বাচ্চা উড়তে শেখে ২০ থেকে ২২ দিনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *