ঝুঁকিতে চিত্রা ঈগল

বৈচিত্র রিপোর্ট  : শিকারি পাখি। শীতে পরিযায়ী হয়ে আসে। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান, উত্তর-পূর্ব চীন, দক্ষিণ চীন, দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপ, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যপ্রাচ্য পর্যন্ত। স্বভাবে হিংস । অন্য সব ঈগলদের মতোই শিকার খোঁজে। ভূ-পৃষ্ঠ থেকে অনেক উঁচুতে উঠতে সক্ষম এরা। বিশ্বে এদের অবস্থান সন্তোষজনক নয় বিধায় আইইউসিএন ঝুঁকিপূর্ণ প্রজাতি হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

পাখির বাংলা নাম: ‘বড় চিত্রা ঈগল’, ইংরেজি নাম: ‘গ্রেটার স্পটেড ঈগল’ (Greater Spotted Eagle), বৈজ্ঞানিক নাম: Aquila clanga। এরা ‘বড় গুটি ঈগল’ নামেও পরিচিত।

প্রজাতি দৈর্ঘ্যে ৫৯-৭১ সেন্টিমিটার। প্রসারিত ডানা ১৫৭-১৭৯ সেন্টিমিটার। ওজন পুরুষ পাখি ১.৬-২.৫ কেজি। মাথা বাদামি। ঘাড় ও পিঠ গাঢ় বাদামি। পিঠ এবং ডানায় বাদামি সাদা গুটি বা চিত্রা। লেজ কালচে বাদামি। বুক ও পেট গাঢ় বাদামি। চোখ বাদামি। ঠোঁট শিং কালো শক্ত মজবুত, অগ্রভাগ বড়শির মতো বাঁকানো। ঠোঁটের গোড়া এবং মুখের কিনার হলদে। পা সাদা-বাদামি পালকে আবৃত। পা ও পায়ের পাতা হলুদ, নখ কালো। স্ত্রী-পুরুষ পাখি দেখতে একই রকম হলেও স্ত্রী পাখি আকারে সামান্য বড়।

প্রধান খাবার: মাছ, সাপ, কাঁকড়া, ব্যাঙ, ইঁদুর, সরীসৃপ, ছোট স্তন্যপায়ী প্রাণী ও ছোট পাখি।

প্রজনন সময় এপ্রিল থেকে আগস্ট। বাসা বাঁধে বড় গাছের উঁচু ডালে। ডালপালা দিয়ে বড়সড়ো অগোছালো বাসা বানায়। এক বাসায় বহু বছর যাবত ডিম বাচ্চা তোলে। ডিম পাড়ে ১-৩টি। ডিম ফুটতে সময় লাগে ৪০-৪৫ দিন। শাবক স্বাবলম্বী হতে সময় লাগে ৫৫-৬৫ দিন। প্রজননক্ষম হতে সময় লাগে ৪-৫ বছর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *