ছোট বুনো ছাতারে

বৈচিত্র রিপোর্ট  : আবাসিক পাখি। দেখতে খানিকটা বুলবুলি পাখির মতো। চটপটেও সেরকম। আমুদে পাখি বলতে যা বোঝায়, তাই এরা। সোজা কথা স্বভাবে ভারি চঞ্চল। প্রাকৃতিক আবাসস্থল চিরহরিৎ বনের ঝোপজঙ্গলে। লোকালয়ে খুব একটা দেখা যায় না। চিরহরিৎ বনের মাঝারি আকৃতির পরিচ্ছন্ন গাছ-গাছালির ডালে লাফিয়ে বেড়ায়। এ ছাড়াও ফুল লেগেছে এমন গাছের উঁচু শাখে পোকামাকড় খুঁজে বেড়ায়। গাছের ডালের বাকল ঠুকরিয়ে পোকামাকড় শিকার করে। এরা বেশিরভাগই বিচরণ করে জোড়ায় জোড়ায়। ছোট-বড় দলেও দেখা যায়। দলের সবাই মিলে ফূর্তি করে। গোসলও করে বেশ আমুদ করে। কণ্ঠস্বর তীক্ষè হলেও সুমধুর। দুই ধরনের কণ্ঠস্বরে ডাকতে পারে। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ ছাড়া, ভারত, নেপাল, ভুটান, মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড পর্যন্ত। বিশ্বে এদের অবস্থান মোটামুটি সন্তোষজনক।

পাখির বাংলা নাম: ‘ডোরাকাটা ছোট বুনো ছাতারে’, ইংরেজি নাম: ‘স্টিরিয়েটেড উহিনা’ (Striated Yuhina), বৈজ্ঞানিক নাম: Yuhina castaniceps। এরা ‘দাগি উহিনা’ নামেও পরিচিত।

প্রজাতির দৈর্ঘ্য ১৩-১৪ সেন্টিমিটার। গড় ওজন ১০-১৭ গ্রাম। স্ত্রী-পুরুষ পাখির চেহারা অভিন্ন। মাথায় ধূসর ঝুঁটি। মাথা লালচে বাদামীর সঙ্গে সাদা ছিট। পিঠ বাদামী। লেজ ও ডানার প্রান্ত পালক গাঢ় বাদামী। দেহতল সাদা। ঠোঁট বাদামী। চোখের মণি কালচে বাদামী। পা হলদেটে।

প্রধান খাবার: পোকামাকড়, ছোট ফল, ফুলের মধু, ঘাস বীজ ।

প্রজনন মৌসুম এপ্রিল থেকে জুলাই। অঞ্চলভেদে প্রজনন মৌসুমের হেরফের রয়েছে। কাপ আকৃতির বাসা বাঁধে। উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে চিকন লতা, তন্তু, ইত্যাদি। ডিম পাড়ে ৩-৬টি। ফুটতে সময় লাগে ১৪-১৬ দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *