সৈকতে নামতে উন্মুখ পর্যটকেরা

সৈকতে নামতে উন্মুখ পর্যটকেরা

সৈকতে নামতে উন্মুখ পর্যটকেরা
ছবি: সংগৃহীত

ডেস্ক নিউজ: শর্ত সাপেক্ষে খুলে দেওয়া হচ্ছে পর্যটন স্পটগুলো। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক কক্ষ ভাড়া দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে ১৯ আগস্ট থেকে খোলা হচ্ছে হোটেল-রেস্তোরা। পর্যটন স্পটগুলোতে লোকসমাগম নিয়ন্ত্রণ রাখতে এবং সৈকতের বালিয়াড়িতে চেয়ারও সীমিত সংখ্যক বসানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

দেশে করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ থেকে দেশবাসীকে রক্ষায় সারাদেশের বিধিনিষেধ আরোপের পাশাপাশি গত এপ্রিল থেকে বন্ধ হয়ে যায় কক্সবাজারের হোটেল, রেস্তোরা ও পর্যটন স্পট। দীর্ঘ সাড়ে চারমাস পর বিধিনিষেধ ১১ আগস্ট হতে শিথিল হয়। ১২ আগস্ট প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে ১৯ আগস্ট হতে সকল ধরণের হোটেল, রেস্তোরা ও পর্যটন স্পট স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়া হবে।

এদিকে ঘোষণার পরপরই শুক্রবার থেকে ভ্রমণ ও সমুদ্রপ্রেমীরা সৈকত এলাকায় ভিড় জমাতে শুরু করেছেন। তবে, প্রশাসনিক নির্দেশনা না থাকার কারণে টুরিস্ট পুলিশ ও লাইফ-গার্ড কর্মীরা সৈকতে ভিড় করা পর্যটকদের ফিরিয়ে দিচ্ছে। তবে কিছু কিছু পয়েন্টে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে সৈকতে নেমে পড়ে ভ্রমণকারীরা।

কক্সবাজার বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক বলেন, সম্ভাবনার পর্যটনশিল্প করোনার কারণে ধুকছে। গত বছরের মতো চলতি বছরেও বিপুল পরিমাণ লোকসান গুনছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। করোনা মোকাবিলার পাশাপাশি সব ধরনের ব্যবসা সচল করতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সেভাবেই পর্যটনও সচল করা হচ্ছে।